মেছতা দূর করার উপায় - (ক্রিম,পুরুষের, মুখের, মেয়েদের)

মেছতা দূর করার উপায়

আজকে আমরা আপনাদের সাথে শেয়ার করতে চলেছি মেছতা দূর করার উপায় ।আপনি কি আপনার মুখের মেছতা নিয়ে বেশি চিন্তিত। আপনি কে আপনার মুখের মেছতা দূর করবেন তা সমাধান খুঁজছেন।

মেছতা-দূর-করার-উপায়

মুখের মেছতা দূর করার উপায়

আমরা অনেক সময় খেয়াল করলে দেখব আমাদের আশেপাশে কিছু মানুষের মুখে প্রচুর পরিমাণে দাগ রয়েছে। সেটা অনেক রকমের হতে পারে কিন্তু তার মধ্যে কিছু রয়েছে মুখের মেছতা আমরা আজকে শেয়ার করতে চলেছি মুখের মেছতা দূর করার প্রাকৃতিক উপায় এবং সেরা কিছু উপায়।

নারীরা সব সময়ই সৌন্দর্য প্রেমিক থাকে। তারা চায় সবসময় যেন সুন্দর পরিপাটি থাকতে পারে। নিজেদের সৌন্দর্য ধরে রাখতে তারা সবসময়ই বদ্ধপরিকর থাকে। নিজেদের সৌন্দর্য ধরে রাখার জন্য তারা সব সময় বিভিন্ন ক্রিম বা প্রসাধনী ব্যবহার করে থাকে। 

বর্তমানে যত ধরনের কসমেটিক রয়েছে তার মধ্যে বেশিরভাগ কসমেটিক রয়েছে মুখের। এই ক্রিমগুলো সাধারণত নারীরাই বেশি ব্যবহার করে থাকে। কারণ তারা যাতে করে তাদের চেহারার সৌন্দর্য দুই থেকে তিনগুণ বৃদ্ধি পায় তারা এটাই চাই। 

কিন্তু এই সকল প্রসাধনী ব্যবহারের ফলে তারা তাদের পক্ষে তাদের সৌন্দর্য টি রয়েছে আল্লাহ প্রদত্ত সেটা তারা হারাচ্ছে।তাদের মুখে মেছতা জাতীয় সমস্যাগুলো দেখা দেয়। তাই এখন সময় এসেছে এই সমস্ত সমস্যা থেকে নিজের ত্বককে রক্ষা করার।

মেছতা কি?

তারা যখন নিজেদের চেহারার সৌন্দর্য রক্ষার জন্য বিভিন্ন ধরনের প্রসাধনী ব্যবহার করে থাকে। তখন কিছু কিছু প্রসাধনী ব্যবহারের ফলে তাদের প্রকৃতির যে সৌন্দর্য রয়েছে সেটা হারিয়ে যায়। কিন্তু কোন নারী এই বিষয়ে সচেতন নয়। 

তারা তাদের চেহারা সুন্দর করতে যে কোন ক্রিম ব্যবহার করতে তারা রাজি। কিন্তু এই সমস্ত ক্রিম ব্যবহার করার ফলে তাদের চেহারার মধ্যে চোপ চোপ দাগ পড়ে যায়। যা আমরা শত শত চেষ্টা করার পরও এ সমস্যার সমাধান করতে পারে না এটি মূলত বলা হয় মুখের মেছতা। 

বিভিন্ন ধরনের ডাক্তার পরামর্শ নিয় তখন তারা আমাদেরকে বিভিন্ন ধরনের ক্রিম ব্যবহার করতে বলে।অনেক সময় দেখা যায় মুখের মেছতা দূর করার জন্য ক্রিম ব্যবহার করার ফল কিছুটা শুফল ফেললেও আবার মুখের মেছতার সমস্যা দেখা দেয়। 

মূলত আমরা বিভিন্ন ধরনের প্রসাধনী এবং ক্রিম ব্যবহার করার ফলে আমাদের মুখের মধ্যে যে চুপ চুপ দাগ পড়ে সেটা হচ্ছে মেছতা।

মেছতা কোথায় দেখা যায়

মুখের মেছতা এমন একটি বড় সমস্যা যেটা আমাদের শরীরের বিভিন্ন অংশে দেখা যায়।তবে সমস্যাটা আমাদের সবচেয়ে বেশি দেখা যায় আমাদের ত্বকে। মুখের মেছতা এমন একটি সমস্যা যেটা আমাদের মুখের একটা সৌন্দর্য রয়েছে সে সৌন্দর্য নষ্ট করে দেয়। 

সাধারণত আমাদের মুখের মেছতা সবচেয়ে বেশি দেখা যায়। এর কারণ হচ্ছে আমরা আমাদের মুখের ত্বক সুন্দর করার জন্য বিভিন্ন রকম ক্রিম ও বিভিন্ন রকম প্রসাধনী ব্যবহার করে থাকি যাতে আমরা মনে করি আমাদের চেহারার সৌন্দর্য আরো বৃদ্ধি পাবে কিন্তু অনেক সময় এটি তার বিপরীত ঘটায় আমাদের যে প্রকৃতি একটি চেহারার সৌন্দর্য রয়েছে সেটা নষ্ট করে দেয় এবং মুখের মেছতা সমস্যা দেখা দেয়।

মেছতা ত্বকে কি ধরনের প্রভাব ফেলে

মুখের মেছতা আমাদের ত্বকে অনেক ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে মেছতা। মেছতার ফলে আমাদের ত্বকে যে ছোপ ছোপ দাগ গুলো পড়ে সেগুলো এক সময় দেখা যায় সে দাগগুলো একপ্রকার স্থায়ী দাগ এর মত দেখা যায়। আমাদের ত্বকের সৌন্দর্য ব্যাঘাত ঘটাতে মেছতা অনেক বড় ভূমিকা পালন করে থাকে। 

তবে এ ত্বকের এই মেছতা হওয়ার সবচেয়ে যে কারণ গুলো রয়েছে সেগুলো আজ পর্যন্ত খুঁজে পাওয়াটা অনেক কষ্ট বের হয়ে গেছে। এখনো পর্যন্ত কেউ এর সঠিক কারণটি খুঁজে পাইনি। তবে কিছু কিছু গবেষণায় জানানো হয়েছে। ত্বকের মেছতার কিছু কিছু কারণ তারা খুঁজে বের করেছে তার মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন রকম প্রসাধনী ব্যবহার করা বংশগতভাবে এটি হতে পারে। 

তবে যাদের এই সমস্যাটি ত্বকের উপরের অংশে রয়েছে অনেক সময় দেখা যায় বিভিন্ন রকম ঔষধ সেবনের ফলে এ সমস্যাটি দূর হয়ে যায়। কিন্তু যাদের এই সমস্যাটি ত্বকের ভিতরে অনেক সময় তাদের এ সমস্যাটি সমাধান হতে অনেক সময় লেগে যায় এমন কিছু কিছু ক্ষেত্রে দেখা যায় এটি সমাধান হয় না।

মেছতা দূর করার উপায়

মেছতা এমন একটি সমস্যা যা আমাদের ত্বকের স্বাভাবিক যে সৌন্দর্যটা রয়েছে সেটি দিয়ে নষ্ট করে ফেলে। তাই আমাদের যাদের এই মেছতার সমস্যাটি রয়েছে তারা টেনসনে ভুগে থাকেন কিভাবে এ সমস্যাটি দূর করা যায় কিভাবে সমস্যাটি থেকে আমরা অত্যন্ত ইত্যাদি বিষয়ে টেনশন করতে থাকে তারা। 

আমাদের যাদের এই  মেছতা সমস্যাটি রয়েছে তারা এ সমস্যাটি থেকে কিভাবে পরিত্রান পাবে সে বিষয়ে তারা ভাবতে থাকে। সাধারণত মুখের মেছতা দূর করার উপায় রয়েছে।প্রাকৃতিক   ২.বিভিন্ন প্রসাধনীর ব্যবহার।


প্রাকৃতিক ভাবে মেছতা দূর করার উপায়

সাধারণত আমাদের শরীরে যখন কোনো সমস্যা দেখা দেয় সেই সমস্যা দূরীকরণের জন্য আমরা সাশ্রয় উৎপাদনে প্রাকৃতিক কোন ওষুধ ব্যবহার করে আমাদের শরীরে এই সমস্যাটি সমাধান করার জন্য।কারণ প্রাকৃতিক উপাদান নিয়ে যদি আমরা আমাদের সমাজের সমাধান করতে চাই সে ক্ষেত্রে আমাদের কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয় না। 

তেমনি ভাবে মানুষ মুখের মেছতা দূর করার জন্য প্রাকৃতিক ভাবে চেষ্টা করে। প্রাকৃতিক ভাবে যদি কোন চিকিৎসা করা হয় সে ক্ষেত্রে এটি ধীরে ধীরে কার্যকর হলো। পারিবারিক সমস্যা প্রাকৃতিক ভাবে যেকোন সমস্যা দূর করা সম্ভব ।

মেছতা সমস্যা সমাধানের প্রাকৃতিক উপাদান এর ব্যবহারঃ

  • আপনার মুখের মেছতা দূর করার জন্য আপনি প্রতিনিয়ত আপনার মুখে লেবুর রস ব্যবহার করতে পারেন নিয়মিত লেবুর রস ব্যবহার করার পর আপনি আপনার মুখের মেছতা দূর করতে পারবেন। মুখে মেছতা দূর করার সবথেকে সেরা পদ্ধতিটি।
  • আপনি আপনার মুখে মেছতা দূর করার জন্য আরেকটি উপায় অবলম্বন করতে পারেন। গুড়া দুধের সাথে গ্লিসারিন মিশিয়ে আপনি আপনার ত্বকের যে স্থানে রয়েছে সে স্থানটিতে ব্যবহার করতে পারেন। আশা করি আপনি ভালো ফল খেতে পারেন।
  • মুখের মেছতা দূর করার আরেকটি সহজ উপায় রয়েছে সেটা হচ্ছে। আলোর পেস্ট করে তার সাথে অ্যালোভেরা জেল মিশ্রন করে আপনি আপনার ত্বকে লাগাতে পারেন আশা করি এতে আপনি আপনার মুখের মেছতা দূর করতে পারবেন।
  • মুখের মেছতা দূর করার একটি প্রাকৃতিক উপায় রয়েছে। কমলালেবুর খোসা ছাড়িয়ে সেটা গুরু করে মধুর সাথে মিশাবেন তারপর সেগুলো আপনি আপনার মুখের মেছতা দূর করার জন্য আপনার ত্বকের উপর ব্যবহার করবেন আশাকরি ভাল প্রকার পাবেন।
  • মুখের মেছতা দূর করার জন্য কমলা লেবুর রসের সাথে সামান্য পরিমাণে ভিনিগার মিশিয়ে আপনি আপনার মুখে লাগাতে পারেন। আশা করি এর ফলাফল আপনার মুখের মেছতা দূর করা সম্ভব।

মেছতা দূর করতে বিভিন্ন প্রসাধনী ব্যবহার

সে যুগ যুগ ধরে নারীরা তাদের সৌন্দর্য ধরে রাখার জন্য বিভিন্ন রকম ক্রিম এবং প্রসাধনী ব্যবহার করে আসছিল। অনেক ধরনের ক্রিম যেমন করে মুখের মেছতা সমস্যার প্রধান কারণ হয়। তেমনি করে মুখের মেছতা দূর করার জন্য কিছু ক্রিম ব্যবহার করা হয় যেগুলো ফলে আমরা আমাদের মুখের মেছতা দূর করতে পারবো। চলুন কয়েকটি মুখের মেছতা দূর করার ক্রিম সম্পর্কে আলোচনা করা যাক।

১.MELANYC  Cream.

আপনি যদি মুখের মেছতা সমস্যায় জর্জরিত থাকেন। আপনি যদি আপনার মুখের মেছতা দূর করার জন্য বিভিন্ন রকম ক্রিম খুঁজে থাকেন। সে ক্ষেত্রে আপনি এই ক্রিমটি ব্যবহার করতে পারেন। এই ক্রিমটি ব্যবহার করার পর আপনি আপনার মুখের মেছতা অনেকটা দূর করতে সফল হবেন। 

কারণ এই ক্রিম এ রয়েছে মুখের মেছতা দূর করার জন্য যাবতীয় সকল উপাদান। যে উপাদান গুলো মুখের মেছতা দূর করার জন্য অনেক কাজের। কোনরকম দ্বিধা বোধ না করে আপনি এটি ব্যবহার করতে পারেন। 

২.Hydroquinone Cream:

এই ক্রিমটি বিভিন্ন ধরনের ত্বকের সমস্যা সহ মুখের মেছতা দূর করতে অনেক সহায়তা করে থাকে। আপনি যদি আপনার মুখের মেছতা সহ বিভিন্ন ধরনের ত্বকের সমস্যা দূর করতে চান তাহলে নির্দ্বিধায় আপনি এই ক্রিমটি ব্যবহার করতে পারেন। এই ক্রিমটি ব্যবহার করলে আপনি আপনার মুখের মেছতা দূর করার উপায় কার্যকর একটি সমাধান হবে।

৩.মেছতা আউট ক্রিমঃ

আজকালকার সময় মুখের মেছতা যেকোনো বয়সী মানুষের হয়ে থাকে। এই সমস্যা এতটাই তীব্র যে বেশিরভাগ মানুষেরই এ সমস্যাটি দেখা যায়। কিন্তু আমাদের সমস্যাটা হওয়ার পর আমরা আমাদের মুখের মেছতা দূর করার জন্য বিভিন্ন রকম উপায় খুঁজে থাকি। 

তার সাথে দেখা করার জন্য যাবতীয় অনেক মুখের ক্রিম রয়েছে। কিন্তু ঐ সমস্ত ক্রিম গুলো অনেক ব্যয়বহুল। যা সকলের ক্ষেত্রে ক্রয় করে ব্যবহার করা সম্ভব না। 

তাই আপনারা যারা দামি ক্রিম গুলো ক্রয় করতে পারবে না তারা চাইলে এই ক্রিমটি ক্রয় করতে পারেন। এই ক্রিমটি ব্যবহার ফলে আপনি আপনার মুখের মেছতা দূর করতে পারবে।

আমরা ইতোমধ্যে অনেকগুলো মুখের মেছতা দূর করার ক্রিম এর সম্পর্কে আলোচনা করেছে। আমরা ওখানে বিভিন্ন রকম ক্রিম নিয়ে আলোচনা করেছেন যেগুলো ব্যবহার করার ফলে আপনি আপনার মুখের মেছতা খুব সহজে দূর করতে পারবেন। 

বর্তমানে বাজারের মুখের মেছতা দূর করার অনেকগুলো ক্রিম রয়েছে। তাই বলে যে সবগুলো ক্রিম ব্যাপারটা কিন্তু তা না কিছু কিছু ক্রিম রয়েছে যা ব্যবহার করার ফলে উপকারের চেয়ে অপকারই বেশি হবে। 

আপনি যদি মুখের মেছতা দূর করার ক্রিম খুঁজে থাকেন সেটা আমাদের উপরের তিনটি ক্রিম সম্পর্কে জেনে নিতে পারেন।

পুরুষের মেছতার সমস্যা সমাধানে

অনেকে মনে করে মুখের মেছতা শুধু নারীদের ক্ষেত্রে হয় আসলে ব্যাপারটা কিন্তু মোটেও সেরকম না। পুরুষদের মুখের মেছতা সমস্যা দেখা দেয়। কিন্তু সে বিষয়টা আমাদের অনেকেরই অজানা। একমাত্র তারাই জানে যারা মুখের মেছতা সমস্যায় জর্জরিত হয়েছিল। কিন্তু আপনি ছেলে খুব সহজে পুরুষদের মুখের মেছতা দূর করতে পারবে সে সম্পর্কে আমরা নিচের কয়েকটি বিষয়ে আলোচনা করেছি আপনি সেগুলো দেখে নিন।

  • আমরা যদি একটু খেয়াল করি তখন দেখতে পাব নারীদের তুলনায় পুরুষদের মুখের ত্বক একটু শক্ত হয়ে থাকে সে ক্ষেত্রে আপনি যদি আপনার মুখের মেছতা দূর করতে চান। তাহলে লেবুর রসের সাথে সামান্য পরিমাণে চিনি মিশিয়ে তারপর আপনার মুখের মেছতা যুক্ত স্থানে সেটা ব্যবহার করতে পারেন আশা করি ভালো ফল পাবেন।
  • এছাড়া আপনি আরও কিছু উপকরণ ব্যবহার করতে পারেন যেগুলো ব্যবহার করার ফলে আপনি আপনার মুখের মেছতা দূর করতে সক্ষম হবেন। সেই উপকরণগুলো হচ্ছে চন্দনের গুঁড়া লেবুর রস ও সামান্য পরিমাণে গ্লিসারিন মিশিয়ে আপনি আপনার মুখের মেছতা যুক্ত স্থানে ব্যবহার করতে পারেন আশা করি ভালো ফল পাবেন।
  • এছাড়াও ছেলেদের মুখের মেছতা দূর করার জন্য কমলা লেবুর গুড়ার সাথে কিছু পরিমাণ গ্লিসারিন মিশিয়ে তারপর আপনি আপনার মুখের মেছতা যুক্ত স্থানের ব্যবহার করতে পারেন। 

মুখের ব্রণ দূর করার উপায়

আজকালকার সময় আমাদের সকলের মুখে মেছতার পাশাপাশি আরেকটি বড় সমস্যা দেখা দেয় সেটা হচ্ছে মুখের ব্রণ। ছেলে কিংবা মেয়ে হোক তারপর তার মুখের ব্রণ দেখা দেয়।মুখের ব্রণ সমস্যায় আমাদের বিভিন্ন কারণে হয়ে থাকে তবে আজ আমরা কি কারণে হয়ে থাকে সেগুলো নিয়ে আলোচনা করেছে কয়েকটি দিয়ে দিয়েছি যেগুলো ভালো করার পর আপনি আপনার মুখের ব্রণ দূর করতে পারেন।

  • আপনার মুখে যদি ব্রণ হয়ে থাকে সে ক্ষেত্রে আপনি নিয়মিত পানি পান করুন
  • শাকসবজি ফলমূল খাওয়ার ফলে মুখের ব্রণ দূর করা সম্ভব
  • নিয়মিত ত্বক পরিষ্কার করার ফলেও মুখের ব্রণ থেকে রক্ষা পাওয়া যায়
  • আপনি আপনার মুখের ব্রণ দূর করতে ত্বকের ধরন অনুযায়ী আপনি ক্রিম ব্যবহার করতে পারেন
  • আপনি আপনার ত্বকের যত্ন নিবেন সেক্ষেত্রে আপনার মুখের ব্রণ হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম থাকবে
  • মুখের ব্রণ দূর করার জন্য মুখের ভালো ফেসওয়াশ ব্যবহার করতে পারেন

আমাদের শেষ কথা

মেছতা আজকালকার সময়ে ভয়াবহ একটি বড় সমস্যা। সমস্যাটি নারী-পুরুষ সকলের ক্ষেত্রে হয়ে থাকে। তাই আমাদেরকে সময়মতো এর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে যাতে করে আমরা এই সমস্যাটি থেকে রেহাই পেতে পারি। আশা করি আপনি যদি উপরোক্ত নির্দেশনাগুলো ভালোভাবে ফলো করেন এবং ফলো করে মেছতা দূর করার উপায় সম্পর্কে আপনি সমাধান পেতে পারেন। 

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url