অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার উপায় - Nid online copy Download

আমার ভোটার আইডি কার্ড দেখতে চাই সরাসরি নতুন আইডি কার্ড কিভাবে দেখব- অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার উপায় - Nid online copy Download

আমার ভোটার আইডি কার্ড দেখতে চাই সরাসরি নতুন আইডি কার্ড কিভাবে দেখব-আপনি যদি একজন নতুন ভোটার হয়ে থাকেন কিন্তু এখন আপনার হাতে আইডি কাটিয়েছে পৌঁছেনি তাহলে আপনি অনলাইন থেকে আপনার আইডি কার্ডের ফটোকপি সংগ্রহ করতে পারবেন। তার জন্য আপনি পুরো পোস্টটি মনোযোগ দিয়ে পড়ুন। 

অনলাইনে জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করার উপায়

একটা বিষয় ক্লিয়ার করে নি তা হচ্ছে আপনি যখন নতুন ভোটারের জন্য আবেদন করেছিলেন যখন আপনি আপনার ফ্রম যাবতীয় কাগজপত্র জমা দিয়ে একটি ছবি তুলেছিলেন তখন আপনাকে একটি ফরমের স্লিপ দেওয়া হয়েছে যেখানে কিছু ফর্ম নম্বর রয়েছে 

সে ফ্রম সংখ্যাগুলো আপনার ভোটার আইডি কার্ড সংগ্রহের জন্য দরকার হবে। সে ফরমটি যদি আপনার কাছে থাকে তাহলে আর কোন চিন্তা নেই আপনি আপনার ভোটার আইডি কার্ড সংগ্রহ করতে পারবেন মোবাইল কিংবা ল্যাপটপ থেকে আপনি এটি করতে পারবেন কিভাবে করবেন জানতে হলে আমাদের পুরো পোস্টটি পড়ুন।

অনলাইন থেকে আপনার ভোটার আইডি কার্ড সংগ্রহ করুন । ভোটার আইডি কার্ড কিভাবে দেখবেন তা নিচে বর্ণনা করা হলো।

প্রথমে আমরা চেক করব আমাদের জাতীয় পরিচয় পত্র তথা ভোটার আইডি কার্ড অনলাইনে আছে কিনা তা আগে আমাদেরকে চেক করতে হবে ডাউনলোড করার পূর্বে । আপনি যদি অনলাইনে জাতীয় পরিচয় পত্র যাচাই করতে বা ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে তথা জাতীয় পরিচয়পত্র যাচাই করতে হয় তাহলে আপনাকে প্রথমে বাংলাদেশের নির্বাচন কমিশনের যে ওয়েবসাইটে রয়েছে সে ওয়েবসাইটটিতে আপনাকে প্রবেশ করতে হবে প্রবেশ করার পর স্টেপ বাই স্টেপ যে কাজগুলো আমরাও দেখাবো সেগুলো আপনি সেভাবে করবেন। 

অনলাইন থেকে জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করার প্রসেস


আমাদের দেওয়া লিংকে কফি https://services.nidw.gov.bd/nid-pub/claim-account করার পর এরকম একটি ওয়েব পেজ আপনার সামনে আসবে ওই পেজে দেখা যাচ্ছে তিনটি বক্স রয়েছে জাতীয় পরিচয় পত্র ফরম নম্বর জন্ম তারিখ ক্যাপচা ফুল বক্স আপনাকে প্রথম বক্সে আপনার ফর মি নম্বরগুলো পচাতে হবে তারপর আপনার সঠিক জন্ম তারিখটি বসাতে হবে এবং উপরের সংখ্যাগুলোকে বসাতে হবে আপনি তারপর সাবমিট বাটনে ক্লিক করুন


ক্লিক করার পর আপনার সামনে আরো এরকম একটি ওয়েব পেজ প্রদর্শিত হবে এখানে আপনাকে ডিসটিক উপজেলা সিলেক্ট করতে হবে সবগুলো আপনি সিলেক্ট করার পর পরবর্তী বাটনে ক্লিক করতে হবে

পরবর্তী বাটনে ক্লিক করার পর আপনার সঙ্গে এরকম একটি অসুবিধা হবে এখানে আপনাকে আপনার মোবাইল নম্বরটি প্রদান করতে হবে মোবাইল নম্বরটা সাবমিট করার পর এই বাটনে ক্লিক করতে হবে

বার্তা পাঠান বাটনটিতে ক্লিক করার পর আপনার সামনে এরকম একটা ওয়েব পেজ প্রদর্শিত হবে যেখানে আপনার দেওয়া নাম্বারটিতে ছয় সংখ্যার একটি ভেরিফিকেশন কোড ফাটানো হয়েছে যে কোডটি আপনাকে বক্সটিতে সাবমিট করতে হবে সাবমিট করার পর বাটনে ক্লিক করুন


বহাল বাটনে ক্লিক করার পর আপনার সামনে আপনার নাম ছবি প্রদর্শিত হবে এবং পাশে লেখা থাকবে দুটি বক্সটিতে লেখা আছে এড়িয়ে যান ও পাসওয়ার্ড সেট করুন আপনাকে সেট পাসওয়ার্ড ক্লিক করতে হবে সেট পাসওয়ার্ড এ ক্লিক করার মূল কারণ হচ্ছে যাতে করে আপনি ছাড়া অন্য কেউ আপনার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে না পারে আপনাকে পাসওয়ার্ড বাটনে ক্লিক করতে হবে


সেট পাসওয়ার্ড বাটনে ক্লিক করার পর আপনার সঙ্গে এরকম একটি ওয়েবসাইট প্রদর্শিত হবে এখানে আপনাকে আপনার ইউজারনেম পাসওয়ার্ড ও পাসওয়ার্ড সাবমিট করতে হবে সাবমিট করার পর আপনাকে আপডেট বাটনে ক্লিক করতে হবে

আপডেট বাটনে ক্লিক করার পর আপনার স্বামীর প্রদর্শিত হবে যেখানে আপনার ছবি দেখাবে নাম ঠিকানা দেখাবে দেখাবে নিচে ডাউনলোড বাটন আপনাকে ডাউনলোড বাটনে ক্লিক করতে হবে ডাউনলোড করার পর আপনার কাজ শেষ এখন আপনার একটি পিডিএফ ফাইল ডাউনলোড হয়ে যাবে পিডিএফ ফাইল টি তে রয়েছে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র আইডি কার্ড কিভাবে জাতীয় পরিচয়পত্র অনলাইন থেকে ডাউনলোড করবেন বা ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করুন আপনাদের কিছু প্রশ্নের উত্তর নিচে দেওয়া হল

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন সংক্রান্ত ভোটার আইডি কার্ড চেক

  •  প্রশ্নঃ আমার ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য কিভাবে সংশোধন করতে পারব

উত্তরঃ আপনার নিকটস্থ নির্বাচন কমিশনার অফিসে ভুল তথ্য সংশোধনের জন্য আবেদন করতে হবে যেখানে আপনি আপনার উপযুক্ত কাগজপত্র আবেদনের সাথে সংযুক্ত করবেন কাগজপত্র যদি আপনার সঠিক থাকে তাহলে আপনি সেখান থেকে সংশোধন করতে পারবেন ।

  •  প্রশ্নঃ আমি যদি জাতীয় পরিচয় পত্র কার্ডে কোন সংশোধন করি তা কি রেকর্ড থাকে

উত্তরঃ যেকোনো সংশোধনের রেকর্ড সেন্ট্রাল ডাটাবেজে সংরক্ষিত করে রাখা হয়। তাই সে ক্ষেত্রে বলা যায় আপনার সংশোধনের রেকর্ড ও তাদের ডাটাবেজে সংরক্ষিত আছে। আমার ভোটার আইডি কার্ড দেখতে চাই এমন প্রশ্নের উত্তরের জন্য আপনি প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত আমাদের পোস্টটি পড়ুন।

  • প্রশ্নঃ ভুলক্রমে আমার আইডি কার্ডে আমার পিতা মাতা স্বামীকে বিদেশ এগুলো করা হলে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন ও কি কি কাগজপত্র দাখিল করতে হবে

উত্তরঃ ভুলক্রমে যদি আপনার আইডি কার্ডে এমনটা হয়ে থাকে তাহলে আপনি আপনার জীবিত পিতা-মাতা স্বামীর প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে নির্বাচন কমিশনের অফিসে সংশোধনের জন্য আবেদন করতে হবে

  •  প্রশ্নঃ আমি অবিবাহিত কিন্তু আমার আইডি কার্ডে পিতা না লিখে স্বামী লেখা হয়েছে এক্ষেত্রে আমার আইডি কার্ড সংশোধনের করনীয় কি

উত্তরঃ যদি আপনার আইডি কার্ডে এমনটা হয়ে থাকে তাহলে আপনি আপনার নিকটস্থ নির্বাচন কমিশনের অফিসে সংশোধনের জন্য একটি আবেদন পত্র জমা দিতে পারেন

  •  প্রশ্নঃ আমার বিয়ের পর আমার স্বামীর নাম সংশোধনের জন্য করনীয় কি

উত্তরঃ নিকাহনামা ও আপনার স্বামীর আইডি কার্ডের ফটোকপি সংযুক্ত করে এনআইডি রেজিস্ট্রেশন সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন কমিশন অফিসে বরাবর একটি আবেদন পত্র জমা দিতে হবে তখন তারা ভাবলো আবেদনপত্রটি থেকে তারাও সংশোধন করে দিবে। আমি নিজেই নিজের ভোটার আইডি কার্ড কিভাবে দেখব তা জানার জন্য উপরের লেখাগুলো পড়তে পারেন।

  • প্রশ্নঃ বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে গেছে এখন আমি যদি আমার ভোটার আইডি কার্ড থেকে আমার স্বামীর নাম বাদ দিতে চাই তাহলে করনীয় কি

উত্তরঃ আপনি আপনার বিবাহ বিচ্ছেদ সংক্রান্ত দলিল তালাকনামা সহ সংযুক্ত বিভিন্ন প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে আপনার নিকটস্থ নির্বাচন কমিশনার অফিসে একটি আবেদন করতে পারেন আবেদন করার পর আবেদনপত্রটি তারা যাচাই-বাছাই করে আপনার আইডি কার্ড সংশোধন করে দিবে

  • প্রশ্নঃ আমার বিবাহ বিচ্ছেদের পর নতুন বিবাহ করেছে এখন আমি যদি আমার আগের স্বামীর নামে স্থলে বর্তমান স্বামীর নাম সংযুক্ত করতে চায় তাহলে আমার করনীয় কি
উত্তরঃ তাহলে আপনাকে প্রথম বিবাহ বিচ্ছেদের তালাকনামা সহ এবং পরবর্তী বিয়ের কাবিননামা প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে আপনাকে আপনার নিকটস্থ নির্বাচন কমিশন অফিসে সংশোধনের জন্য আবেদন করতে হবে

  • প্রশ্নঃ আমি আমার আইডি কার্ড থেকে আমার কাছা পরিবর্তন করতে চাই এখন আমার করনীয় কি
উত্তরঃ আপনাকে আপনার নিকটস্থ এনআইডি রেজিস্ট্রেশন অফিসে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দাখিল করতে হবে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দাখিল করে একটা আবেদন করতে হবে। অনলাইন থেকে আপনার আইডি কার্ড সংগ্রহ করুন এভাবে
  • প্রশ্নঃ আমার আইডি কার্ডে আমার ছবি অস্পষ্ট সে খেতে আমি আমার ছবি কিভাবে পরিবর্তন করব
উত্তরঃ সেক্ষেত্রে আপনাকে নিজেই সেখানে সরাসরি উপস্থিত থেকে আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগ এ আবেদন করতে হবে । সে ক্ষেত্রে তারা যদি আপনারা বললেন পরিবহন করে তাহলে আপনি নতুন ভাবে আবার ছবি তুলতে পারবেন। অনলাইন থেকে ভোটার আইডি কার্ড বের করার নিয়ম জানতে চাই। আপনার আইডি কার্ড চেক করুন অনলাইনে।
  • প্রশ্নঃ আমার পিতার নামের বানান সংশোধন কিভাবে করব সংশোধন করতে গেলে কি কি কাগজপত্র জমা দিতে হবে
উত্তরঃ আপনার পিতার নামের বানান যদি ভুল হয়ে থাকে তাহলে আপনি ফিতার ভোটার আইডি কার্ডের সত্যায়িত কপি জমা দিতে হবে জমা দিয়ে একটা আবেদন করতে হবে। আমার ভোটার আইডি কার্ড দেখতে চাই এমন প্রশ্নের উত্তরের জন্য আপনি আমাদের পোস্ট এর শুরু থেকে পড়তে পারেন
  • প্রশ্নঃ আমার মাতার নামের বানান সংশোধন কিভাবে করব সংশোধন করতে গেলে কি কি কাগজপত্র জমা দিতে হবে
উত্তরঃ আপনার পিতা কিংবা আপনার মাতা যার নামের বানান ভুল হোক না কেন সংশোধনের ক্ষেত্রে এ কি কাগজপত্র প্রয়োজন হয় তাদের ভোটার আইডি কার্ডের সত্যায়িত ফটোকপি জমা দিয়ে একটা আবেদন করতে হবে।
  • প্রশ্নঃ আমার স্বামীর নামের বানান সংশোধন কিভাবে করব সংশোধন করতে গেলে কি কি কাগজপত্র জমা দিতে হবে
উত্তরঃ আপনার স্বামীর নামের বানান যদি ভুল হয়ে থাকে তাহলে আপনার স্বামীর এসএসসি সমমান অথবা জন্মসনদ না হয় পাসপোর্ট নাগরিকত্ব সনদ চাকরির প্রমাণাদি ইত্যাদি কাগজপত্র নিয়ে নিকটস্থ নির্বাচন কমিশন অফিসে জমা দিয়ে আবেদন করতে হবে।
  • প্রশ্নঃ আমার নিজের ডাকনাম বা অন্য নামে যদি আমার আইডি কার্ড নিয়ে গঠিত হয় সেক্ষেত্রে সংশোধনের জন্য আবেদনের সাথে কি কি কাগজপত্র জমা দিতে হবে
উত্তরঃ আপনার যদি এমন সমস্যা হয়ে থাকে তাহলে আপনার এসএসসি সার্টিফিকেট সনদ বিবাহিতদের ক্ষেত্রে স্ত্রী /স্বামীর জাতীয় পরিচয়পত্রের সত্যায়িত কপি, ম্যাজিস্ট্রেট করে সম্পাদিত এফিডেভিট ও জাতীয় পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি ওয়ারিশ সনদ ইউনিয়ন পরিষদের প্রতি আপনার প্রাপ্ত সংক্রান্ত প্রত্যয়ন পত্র এ সকল কাগজপত্র সংগ্রহ করে জমা দিতে হবে।
  • প্রশ্নঃ পিতা-মাতা বা স্বামীকে যদি মৃত উল্লেখ করতে চাই তাহলে সেক্ষেত্রে তাদের কি কি কাগজপত্র দাখিল করতে হবে
উত্তরঃ আপনার যদি আপনার মৃত পিতা-মাতা অথবা স্বামীর স্বামীর নাম উল্লেখ হয় মৃত হিসেবে তাহলে আপনি তাদের মৃত্যু সনদ দাখিল করতে হবে - আপনার ভোটার আইডি কার্ড বের করার নিয়ম এতক্ষণে পড়েছেন - মোবাইলে ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে পারবেন এখন থেকেআইডি কার্ড চেক করুন অনলাইনে এখন থেকে
ফকিং
  • প্রশ্নঃ আমার ঠিকানা যদি পরিবর্তন করতে চাই নতুন ঠিকানা যদি সংশোধন করতে চাই সে ক্ষেত্রে আমার করনীয় কি
উত্তরঃ আপনি যদি আপনার আবাসস্থল পরিবর্তন করার কারণেই আপনার ঠিকানা পরিবর্তন করতে চান সে ক্ষেত্রে আপনি নতুন যে এলাকায় বসবাস করেন সে এলাকার নিকটস্থ নির্বাচন কমিশনের অফিসে ফর্ম 13 এর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন - তবে আপনি যদি আপনার নিজ এলাকার কোন ঠিকানা তথ্য বা বানান গত কোন ভুল থাকে শেখ আপনাকে সাধারণ সংশোধনের আবেদন  করলে হবে
  • প্রশ্নঃ আমি বৃদ্ধ অত্যন্ত দরিদ্র ফলে বয়স্ক ভাতা সহ যেকোনো মতামত খুবই প্রয়োজন কিন্তু নির্দিষ্ট বয়স না হওয়া পর্যন্ত সরকারি সুযোগ সুবিধা পাওয়া যায় না - লোকে বলে আমার আইডি কার্ড এর বয়সটা বাড়ালে এই সকল সুবিধা পাওয়া যাবে ?
উত্তরঃ আপনার আইডি কার্ডের যে বয়স টি রয়েছে সে বয়স টি প্রয়োজনীয় দলিলপত্র পরিবর্তন করা যায় না আপনার প্রমানিক দলিল তদন্ত ও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয় আপনার যদি প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ঠিক থাকে সে কাগজ পত্রের তথ্য অনুযায়ী যদি আপনার ভোটার আইডি কার্ডের বয়স কম হয়ে থাকে তাহলে হয়তো বয়স বাড়ানো সম্ভব হয় - তারপরও আপনি আপনার নিকটস্থ নির্বাচন কমিশন অফিস এগিয়ে যোগাযোগ করতে পারেন
  • প্রশ্নঃ আমাদের একই পরিবারের বিভিন্ন সদস্যের ভোটার আইডি কার্ডে এ পিতা/ মাতার নাম বিভিন্ন ভাবে লেখা হয়েছে তা কিভাবে সংশোধন করতে পারে ?
উত্তরঃ আপনাদের সকলের ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি সম্পর্কের বিভিন্ন দিয়ে এনআইডি রেজিস্ট্রেশন অফিসে গিয়ে তাদেরকে বিভিন্ন প্রয়োজনীয় দলিলপত্র সহ একটি আবেদন করতে হবে । আপনি যদি নিজে নিজেই ভোটার আইডি কার্ড দেখতে চাই তাহলে উপরের দেখানো স্টেপগুলো ফলো করতে পারেন
  • প্রশ্নঃ আমি পাস না করেও আমার শিক্ষাগত যোগ্যতা ভুলে এসএসসি পাস দিয়েছিলেন এখন আমি আমার এই ভুল তথ্য গুলো কিভাবে সংশোধন করতে পারি ?
উত্তরঃ আপনি প্রথমে আপনার নিকটস্থ ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে গিয়ে আপনার একটি এসএসসি পাশ করেননি ভুলক্রমে লিখেছিলেন এ মর্মে একটি হলফনামা করতে হবে হলফনামা সংশোধনের আবেদন করলে তা সংশোধন করা যাবে। আমার ভোটার আইডি কার্ড দেখতে চাই এমন প্রশ্নের উত্তরের জন্য আপনি আমাদের উপরের পোস্টে step-by-step ফলো করতে পারেন
  • প্রশ্নঃ আমার আইডি কার্ডে অন্য ব্যক্তির তথ্য চলে এসেছে এক্ষেত্রে আপনি আমাকে এ বুলটি কিভাবে সংশোধন করতে পারব?
উত্তরঃ আপনার ভুল তথ্যের সংশোধনী পক্ষে পর্যাপ্ত কাগজপত্র নিয়ে আপনার নিকটস্থ নির্বাচন কমিশনার অফিস একটা আবেদন করতে হবে সে ক্ষেত্রে তারা আপনার বায়োমেট্রিক যাচাই করার পর যদি আপনার সঠিক তথ্য পায় তখন তারা সংশোধন প্রক্রিয়া শুরু করবে।
  • প্রশ্নঃ আমার ভোটার আইডি কার্ডের রক্তের গ্রুপ অন্তর্ভুক্ত অথবা রক্তের গ্রুপ সংশোধন প্রক্রিয়া কি?
উত্তরঃ আপনি যদি আপনার ভোটার আইডি কার্ডের রক্তের গ্রুপ অন্তর্ভুক্ত কিংবা সংশোধন করতে চান সেক্ষেত্রে আপনাকে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় কৃত ডায়াগনস্টিক সেন্টারের রিপোর্ট দাখিল করতে হবে তাহলে আপনি সংশোধন করতে পারেন। আমরা উপর আলোচনা করেছি কেউ আপনি আপনার নিজের ভোটার আইডি কার্ড দেখতে পারবেন অনলাইন থেকে।
  • প্রশ্নঃ আমার জাতীয় পরিচয় পত্রের বয়স ও জন্ম তারিখ কিভাবে পরিবর্তন করব?
উত্তরঃ সেক্ষেত্রে আপনাকে আপনার এসএসসি বা সমমানের পরীক্ষার সনদের সত্যায়িত ফটোগ্রফি আপনার আবেদন করার সময় জমা দিতে হবে অথবা প্রযুক্তি এসএসসি ও সমমানের সনদপ্রাপ্ত না হয়ে থাকেন সেক্ষেত্রে আপনাকে আপনার বয়সের পক্ষে সকল উপস্থাপন করতে হবে আপনার আবেদন করার পর আপনার বিষয়টি তদন্ত পূর্বক প্রয়োজনে ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পর্কে সঠিক নির্ধারণ করে প্রয়োজনীয় সংশোধন করা হবে আপনি আপনার
  • প্রশ্নঃ আমি আমার আইডি কার্ড থেকে আমার স্বাক্ষর পরিবর্তন করতে চাই সে ক্ষেত্রে আমার করনীয় কি?
উত্তরঃ সে ক্ষেত্রে আপনাকে আপনার প্রথম স্বাক্ষরের নমুনা সহ গ্রহণযোগ্য সকল প্রমান পত্র সংশোধন করে আপনার নিকটস্থ নির্বাচন কমিশনার অফিসে আবেদন করতে হবে তবে মনে রাখবেন স্বাক্ষর একবারে পরিবর্তন করা যাবে
  • প্রশ্নঃ আমার ভোটার আইডি কার্ডে আমার জন্মতারিখ যথাযথ ভাবে লেখা হয়নি সে ক্ষেত্রে আমার কাছে তেমন কোনো প্রমাণিত দলিল নেই সে ক্ষেত্রে আমার করনীয় কি?
উত্তরঃ সেক্ষেত্রে আপনাকে আপনার উপজেলা নির্বাচন কমিশন অফিসে একটা আবেদন করতে হবে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে - অনলাইন দেখে আপনার ভোটার আইডি কার্ড সংগ্রহ করুন এ বিষয়ে উপর বর্ণনা করেছি
  • প্রশ্নঃ একটি জাতীয় পরিচয় পত্র কতবার পরিবর্তন করা যায়?
উত্তরঃ এক তথ্য অনুযায়ী কেবল একবারই জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন করা যায় তবে যুক্তিযুক্ত না হলে কোন সংশোধনী কাজে আসবে না - নতুন ভোটার আইডি কার্ড কিভাবে দেখব জেনে নিন উপরে দেখান স্টেপ গুলো থেকে

আমার জাতীয় পরিচয় পত্র অথবা ভোটার আইডি কার্ড হারিয়ে গেলে করণীয়। স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড করা যায়।
  • প্রশ্নঃ আমার ভোটার আইডি কার্ড হারিয়ে গেছে কিভাবে আমি নতুন একটি ভোটার আইডি কার্ড পেতে পারি?
উত্তরঃ আপনার যদি ভোটার আইডি কার্ড হারিয়ে থাকে তাহলে আপনি প্রথম আপনার নিকটস্থ থানায় একটি জিডি করতে হবে মূল কপি সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট নির্বাচন কমিশন অফিস এ একটি আবেদন করতে হবে - অথবা আপনি ঢাকা জাতীয় পরিচয় পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগ এ এস আপনি আবেদন করতে পারবেন
  • প্রশ্নঃ হারানো জাতীয় পরিচয়পত্র ভোটার আইডি কার্ড পেতে বা তথ্য সংশোধনের জন্য কি কোন রকম ফি দিতে হয়?
উত্তরঃ এখনো পর্যন্ত হারানো জাতীয় পরিচয় পত্র তথ্য ভোটার আইডি কার্ড যদি হারিয়ে যায় সে ক্ষেত্রে তা পাওয়ার ক্ষেত্রে কোন রকম টাকা দেওয়া লাগে না তেমনি ভাবে তথ্য সংশোধনের ক্ষেত্রে কোনো রকম ফি প্রদান করা প্রয়োজন হয়না তবে ভবিষ্যতে সরকার কর্তৃক ফ্রি ধার্য করা হতে পারে -ভোটার আইডি কার্ড বের করার নিয়ম আমরা উপরে আলোচনা করেছি
  • প্রশ্নঃ আইডি কার্ড হারিয়ে গেলে ও সংশোধন এর কাজ কি একসাথে করা যায়
হারিয়ে যাওয়া আইডি কার্ড এর তথ্য সংশোধন করা যায় না আপনাকে আইডি কার্ড পেতে হবে তারপর আপনি সেয়ারি করে তথ্য সংশোধন করতে হবে আইডি কার্ড না থাকলে আপনি তথ্য সংশোধন করতে পারবেন না আগে আপনাকে আপনার হারানো আইডি কার্ড সংগ্রহ করতে হবে- নতুন ভোটার আইডি কার্ড কিভাবে দেখব এতক্ষণে জেনে গেছেন হয়তো আপনারা
  • প্রশ্নঃ হারিয়ে যাওয়া জাতীয় পরিচয় পত্র কিভাবে সংশোধন করব
হারিয়ে যাওয়া জাতীয় পরিচয়পত্র বা ভোটার আইডি কার্ডের ভুল তথ্য সংশোধনের কোন উপায় নেই কারণ আপনাকে প্রথমে টিকেট সংগ্রহ করতে হবে তারপর ভুল তথ্য সংশোধনের জন্য আবেদন করতে হবে
  • প্রশ্নঃ প্রাপ্তি স্বীকার পত্র/অথবা স্লিপ হারালি আমাদের করণীয় কি
এক্ষেত্রেও আপনাকে থানায় একটি জিডি করতে হবে যিনি করে সঠিক ভোটার আইডি নম্বর আপনাকে হারানো আইডি কার্ডের জন্য আবেদন পত্র জমা দিতে হবে- আপনি নিজেই নিজের আইডি কার্ড চেক করুন অনলাইনে
  • প্রশ্নঃ প্রাপ্তি স্বীকার পত্র/ আইডি কার্ড হারিয়ে গেছে কিন্তু কোন ডকুমেন্ট আমার কাছে নেই এবং এনআইডি নম্বর নেই/ ভোটার নম্বর/এবং স্লিপের নম্বর নেই, সে ক্ষেত্রে আমার করনীয় কি?
সেক্ষেত্রে আপনাকে প্রথম আপনার নিকটস্থ নির্বাচন কমিশনার অফিসে গিয়ে আপনার ভোটার নম্বর সংগ্রহ করতে হবে ভোটার নম্বর সংগ্রহ করে এনআইডি রেজিস্ট্রেশন অফিসে গিয়ে একটি আবেদনপত্র জমা দিতে হবে
  • প্রশ্নঃ আমার কাছে আমার জাতীয় পরিচয়পত্র নেই কিন্তু আমার তথ্য পরিবর্তন হয়েছে এমন তথ্যাদি পরিবর্তন কিভাবে সম্ভব?
জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগ সংক্রান্ত কাগজপত্র সহ আবেদন করেন তাহলে তারা যাচাই বাছাই করে তা পরিবর্তন করে দিবে - অনলাইন থেকে কিভাবে ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করব তা জানার জন্য আপনি আমাদের উপরের স্টেপগুলো ফলো করতে পারেন
  • প্রশ্নঃ বর্তমানে আমাদের কে যেজাতীয় পরিচয়পত্র প্রদান করা হয় সে পত্রের মান তেমন ভালো না এটা কি ভবিষ্যতে উন্নত করার সম্ভাবনা আছে?
বর্তমানে যারা জাতীয় পরিচয় পত্র আগেরটি সংগ্রহ করেছেন তারা খুব শীঘ্রই স্মার্ট কার্ড পেতে চলেছেন আরো অনেক উন্নত ফিচার যুক্ত করা হয়েছে এই 

জাতীয় পরিচয় পত্র নিবন্ধন সংক্রান্ত সব তথ্য- অনলাইনে আইডি কার্ড চেক করুন -স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড করুন
  • প্রশ্নঃ আমি যথা সময়ে 
    অনলাইনে জাতীয় পরিচয়পত্র ডাউনলোড করার উপায় রেজিস্ট্রেশন করতে পারিনি এখন কি আমি আইডি কার্ডের জন্য রেজিস্ট্রেশন করতে পারব?
হা আপনি করতে পারবেন ভোটার আইডি কার্ড রেজিস্ট্রেশন এর জন্য যে ডকুমেন্টগুলো প্রয়োজন হয় আপনি সবগুলো ডকুমেন্ট সংগ্রহ করে আপনার নিকটস্থ নির্বাচন কমিশনের অফিসে জমা দিতে পারেন - তখন তারা আপনার ডকুমেন্টগুলো যাচাই-বাছাই করে আপনাকে কল অথবা এসএমএস করবে তখন আপনি আপনার ছবি তুলে আসবেন - তারপর তারা আপনাকে একটি স্লিপ দিবে তা দিয়ে আপনি কিছুদিন পর আপনার আইডি কার্ড অনলাইনে দেখতে পারবেন এবং সেখান থেকে ডাউনলোড করতে পারবেন
  • প্রশ্নঃ আমি দেশের বাইরে থাকার কারণে ভোটার আইডি কার্ড করতে পারেনি এখন আমি কিভাবে ভোটার আইডি কার্ডের জন্য রেজিস্ট্রেশন করব?
আপনাকে প্রথমে আপনার জন্ম নিবন্ধন কার্ড আপনার বাবা-মায়ের বিভিন্ন ডকুমেন্ট দিয়ে অনলাইন একটি ফরম পূরণ করতে হবে সেই ফরমের কপিসহ আপনার পাসপোর্ট এর অনুলিপি জন্মসনদ এসএসসি প্রযোজ্য ক্ষেত্রে আপনার ঠিকানা হোল্ডিং ট্যাক্স এর রশিদ সহ বিভিন্ন প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট নিয়ে আপনি আপনার নিকটস্থ নির্বাচন কমিশন অফিসে আবেদন করতে পারেন- তারপরও আপনি আপনার ইউনিয়ন পরিষদে এর সচিব থেকে বিস্তারিত জেনে নিবেন- ভোটার আইডি কার্ড দেখার নিয়ম আমরা উপরে স্টেপ বাই স্টেপ বুঝিয়ে দিয়েছি আপনি সেখান থেকে দেখে ডাউনলোড করে নিন
  • প্রশ্নঃ আমি 2007 /2008 অথবা 2009/2010 সালের দিকে ভোটার কার্ডের জন্য আমি এ রেজিস্ট্রেশন করেছে কিন্তু আমি সেই সময় ভোটার আইডি কার্ড সংগ্রহ করে নি এখন আমি কিভাবে আমার ভোটার আইডি কার্ড সংগ্রহ করতে পারে?
আপনি আপনার ভোটার আইডি কার্ড সংগ্রহ করার জন্য আপনি যে এলাকায় ভোটার হয়েছেন সে এলাকায় নির্বাচন কমিশনার অফিসে আপনি ভোটার হওয়ার সময় যে স্লীপ পেয়েছেন সে স্লিপটি সংগ্রহ করে তাদের সাথে যোগাযোগ করুন- যদি সেখানে আপনার ভোটার আইডি কার্ড না পান তাহলে আপনার প্রাপ্ত ক্লিপটি নিয়ে উপজেলা নির্বাচন অফিসার মন্তব্যসহ স্বাক্ষর ও সিল দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগ এ যোগাযোগ করতে পারেন
  • প্রশ্নঃ আমার ভোটার তালিকার নামের সাথে আমার বিভিন্ন খেতাব ,যেমন ধর্মীয়, পেশা, উপাধি, পদবী ,ইত্যাদি কি যুক্ত করতে পারব?
ভোটার তালিকায় যে ডাটাবেজ রয়েছে সে ডাটাবেজের শুধুমাত্র একজন ব্যক্তির নাম সংযুক্ত করা যায় ঐ ব্যক্তির কোন উপাধি উচিত হবে তাতে সংযুক্ত করা অবকাশ নাই - নতুন ভোটার আইডি কার্ড কিভাবে দেখব তা জানতে আমাদের উপরের স্টেপগুলো ফলো করুন

অনলাইন থেকে আমার ভোটার আইডি কার্ড দেখতে চাই কিভাবে স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড করব
  • প্রশ্নঃ আমি নতুন ভোটার হয়েছে এখন আমি বিদেশ চলে যাব এক্ষেত্রে কি আমার ভোটার আইডি কার্ড অন্য কেউ উত্তোলন করতে পারবে?
না এখন পারবেনা একসময় পার্থ আপনি যেখানে থাকেন না কেন আপনার ভোটার স্লিপ নম্বর দিয়ে আপনার ভোটার আইডি কার্ড সংগ্রহ করতে পারত কিন্তু বর্তমান ওয়েবসাইটে আপডেটের ফলে এখন আর কেউ কারো ভোটার আইডি কার্ড সংগ্রহ করতে পারবেনা কারো ভোটার আইডি কার্ড সংগ্রহ করতে হলে যার ভোটার আইডি কার্ড সে ওখানে উপস্থিত থাকতে হবে না হয় কেউ কারো ভোটার আইডি কার্ড সংগ্রহ করতে পারবেন - তাই আপনি যদি আপনার ভোটার আইডি কার্ড সংগ্রহ করবে এ নিয়ে হয়ে থাকেন তাহলে আপনার কোন চিন্তার কারন নেই
  • প্রশ্নঃ আমি যদি আমার জাতীয় পরিচয় পত্রে ইচ্ছাকৃতভাবে ভুল তথ্য দিয়ে সে ক্ষেত্রে কি হবে?
ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোডসে ক্ষেত্রে আপনার জেল ও জরিমানা অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হতে পারেন ভোটার আইডি কার্ড একজন নাগরিকের পরিচয় সেখানে যদি আপনি ইচ্ছাকৃতভাবে ভুল দিয়ে থাকেন সেটা আপনার নাই তাই আপনি জেনে শুনে যেকোনো কাজ করবে - ভোটার আইডি কার্ড বের করার নিয়ম আমরা উপর
  • প্রশ্নঃ কারো কারো আইডি কার্ডে 13 টা নম্বরটা আবার কারো কারো আইডি কার্ডের নম্বর 17 টা?
2008 সালের পর থেকে যত আইডি কার্ড প্রেম করা হয়েছে 2008 সালের পর থেকে যত আইডি কার্ড পুনরায় পিন করা হয়েছে সে সকল আইডি কার্ডের নম্বর সাধারণত 17 ডিজিটের হয়ে থাকে
  • প্রশ্নঃ আমাদের বিভিন্ন জায়গা জমির দলিলে আমার বিভিন্ন বয়স ও নাম দেওয়া আছে সেক্ষেত্রে আমি আইডি কার্ড রেজিস্ট্রেশন এর ক্ষেত্রে কোনটি ব্যবহার করব
সে ক্ষেত্রে আপনি যদি পড়ালেখা করে থাকেন তাহলে আপনার এসএসসি অথবা সমমানের পরীক্ষার সনদ উল্লেখিত নাম বয়স এগুলো দিয়ে আপনি আবেদন করতে পারবেন আর যদি আপনি পড়ালেখা না করে থাকেন তাহলে আপনার জন্ম সনদ ফাস্টফুড ড্রাইভিং লাইসেন্স দিয়ে আপনি ভোটার আইডি কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন
  • প্রশ্নঃ আঙ্গুলের ছাপ দিয়ে কি ডুপ্লিকেট অ্যান্টি শনাক্ত করা সম্ভব
অবশ্যই আংগুলের সাপ দিয়ে ডুপ্লিকেট অ্যান্টি শনাক্ত করা সম্ভব - 2021 সালে যারা ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে চান তারা আমাদের উপরের দেখানো স্টেপগুলো ফলো করতে পারেন
  • প্রশ্নঃ একজন ব্যক্তির পক্ষে কি একাধিক নাম ও একাধিক বয়স ব্যবহার করে একাধিক জাতীয় পরিচয়পত্র কার্ড সংগ্রহ করতে পারবে
না করতে পারবে না । একজন ব্যক্তির ক্ষেত্রে একাধিক আইডি কার্ড কখন করা সম্ভব না কারণ আপনি যদি বিভিন্ন স্থান থেকেও করতে যান বিভিন্ন তথ্য দিয়ে তারপরও আপনার হবে না কারন আপনার হাতের ছাপ একবারই তাদের ডাটাবেজে আন্টি হবে সে ক্ষেত্রে আপনি যদি ধরা পড়েন তাহলে আপনার বিরুদ্ধে মামলা হতে পারে
  • প্রশ্নঃ একজন নতুন ভোটার হওয়ার ক্ষেত্রে তার কি কি কাগজ পত্রাদি প্রয়োজন হতে পারে
বর্তমানে একজন নতুন ভোটার এক্ষেত্রে যে কাগজপত্রগুলো প্রয়োজন সেগুলো হচ্ছে, জন্ম নিবন্ধন সনদ এসএসসি বা সমমান পরীক্ষার সনদ যদি থেকে থাকে, ঠিকানা প্রমাণের জন্য, ইউটিলিটি বিল এর ফটোকপি নাগরিক সনদ ও বাবা-মার বিবাহিত হলে স্বামী-স্ত্রীর এনআইডি কার্ডের ফটোকপি ড্রাইভিং লাইসেন্স, 

টিন নাম্বার যদি থেকে থাকে তবে বর্তমানে আপনি যে স্থানে বসবাস করেন আপনার বাড়ির দলিল প্রয়োজনে দলিলের ফটোকপি জমা দিতে হবে এবং নিজ বাই, বোনের জন্ম নিবন্ধন সনদের ফটোকপি প্রয়োজন হয় আপনি এসকল তথ্য নিয়ে নিকটস্থ নির্বাচন কমিশনার অফিসে জমা দিতে পারে
  • প্রশ্নঃ  আমি একজন কবুতরের রোগ মানুষ ও আমার বয়স 18 বছরের কম 18 বছর বয়সের কম হয় আমিন গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিতে বা অন্য কোথাও চাকরি পাইনা মানবিক কারণে পরিস্থিতি বিবেচনা করা কি যায়
ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড 2020: না। 18 বছর পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত একজন নাগরিক ভোটার হতে পারবে না তাকে 18 বছর হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে এক্ষেত্রে মানবিক বিবেচনায় কোনো সুযোগ নেই - উপরের নিয়ম অনুযায়ী অনলাইন থেকে আপনার আইডি কার্ড সংগ্রহ করতে পারবেন
  • প্রশ্নঃ  আমি ভুল করে দুবার ভোটার আইডি কার্ডের জন্য রেজিস্ট্রেশন করে ফেলেছি এক্ষেত্রে এখন আমি কি করব?
যত দ্রুত সম্ভব আপনি আপনার নিকটস্থ জেলা নির্বাচন অফিসের লিখিতভাবে একটি ক্ষমা প্রার্থনা জানান বর্তমান সময়ে ফিঙ্গার প্রিন্ট মেশিন কার্যক্রম চলছে এক্ষেত্রে অচিরেই ডুপ্লিকেট অ্যান্টি সনাক্ত করা হবে উল্লেখ্য শাস্তিযোগ্য অপরাধ আপনি যত দ্রুত সম্ভব লিখিতভাবে ক্ষমা প্রার্থনা জানান
  • প্রশ্নঃ একজনের ভোটার আইডি কার্ড অন্যজনকে সংগ্রহ করতে পারবে যদি যার ভোটার আইডি কার্ড সে চাই?
যদি জাল ভোটার আইডি কার্ড সে চাই তাহলে সম্ভব তবে সেক্ষেত্রেও ক্ষমতাপত্র ও প্রাপ্তি স্বীকার রশিদ নিয়ে আসলে তা সংগ্রহ করতে পারবে পারলেও সংগ্রহ করা যাবে না - ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করুন 2020 সালে যারা ভোটার হয়েছেন আমাদের উপরের দেখানো স্টেপ গুলো ফলো করে
ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে চাই কিন্তু কিভাবে
  • ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করতে চাইলে এই লিংকে চাপ দিন অথবা কপি করুন লগ ইন করা থাকলে লগ-ইন করে নিন তারপর অ্যাড বাটনে চাপ দিয়ে পরবর্তী নির্দেশনা অনুসরণ করুন
  • ভোটার আইডি কার্ড সংশোধনের জন্য যে টাকা জমা দিতে হয় সেটি সম্পর্কে জানতে এই লিংকে ক্লিক করুন https://services.nidw.gov.bd/nid-pub/register-account
আমি নতুন ভোটার হতে চাই - নতুন ভোটার আইডি কার্ড করার নিয়ম কি
নতুন ভোটার হতে নতুন ভোটার আইডি কার্ড করার নিয়ম জানতে চাইলে এই লিংকে চাপ দিয়ে পরবর্তী নির্দেশনা অনুসরণ করুন আশাকরি আপনি এতক্ষণ নতুন ভোটার আইডি কার্ড করার নিয়ম 2019 এখন আপনি সম্পূর্ণ বুঝতে পেরেছেন যদি উপরের লিংকটি ভিজিট করেন আপনার যদি 

নতুন ভোটার আইডি কার্ড করার নিয়ম বুঝতে সমস্যা হয় সে ক্ষেত্রে আপনি আমাদের এই পোষ্টের নিচে কমেন্ট করতে পারেন আমরা যথাযথ শাস্তি করবো আপনাকে উত্তরটা দেওয়ার জন্য তাই আপনি আগে সম্পূর্ণ প্রস্তুত পরে আবার step-by-step করে আপনি চেষ্টা করুন অথবা আপনি যদি করতে সমস্যা হয় তাহলে আপনি ইউটিউবে বিভিন্ন রয়েছে ভিডিও গুলো দেখতে পারেন

সবার প্রথমে একজন নতুন ভোটারের যে স্টেপ ফলো করতে হবে তা হচ্ছে প্রথম আপনাকে অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে অনলাইন করার সময় আপনি আপনার নাম ঠিকানা যাবতীয় ইনফরমেশন গুলো কে সঠিকভাবে সাবমিট করবেন সবগুলো ইনফরমেশন দেওয়ার পরে আপনি পুনরায় ক্লিক করে সব গুলো দেখবেন সঠিক আছে কিনা যদি কোন ভুল দিয়ে থাকেন আপনি সাথে সাথে সেটি সংশোধন করে নিবেন 

তবে সবচেয়ে ভালো হয় আপনি যদি ফরম পূরণ করার সময় আপনার যাবতীয় ডকুমেন্টগুলো আপনার পাশে রাখবেন এতে করে আপনার মূল্যবান সম্ভাবনা খুব কম থাকবে- অ্যাপ্লিকেশন ফর্ম পূরণ করার পর আপনার যাবতীয় যে যে ডকুমেন্টগুলো প্রয়োজন সব গুলো সংগ্রহ করা আপনার নিকটস্থ উপজেলা নির্বাচন কমিশনার অফিসে জমা দিয়ে আসব- যে ডকুমেন্টগুলো প্রয়োজন হবে তা আমরা উপরে বলে রেখেছি আপনি সেখান থেকে জেনে নিতে পারেন

Nid bd help number - জাতীয় পরিচয় পত্র সংশ্লিষ্ট হেল্পলাইন- ভোটার আইডি কার্ড চেক করুন
  • যোগাযোগের ঠিকানা নির্বাচন ভবন 7 থেকে 8 ফ্লোর আগারগাঁও ঢাকা
  • nid bd helpline call center number : 105  তবে সব সময় নাম্বারে যোগাযোগ করতে পারবেননা যোগাযোগের সময় সকাল 9 টা থেকে বিকাল 5 টা পর্যন্ত
  • nid bd helpline facebook page: https//ww.facebook.com/bd.nid
  • nid bd helpline email: info@nidw.gov.bd
  • bd nid helpline number 01708501261
যোগাযোগ সময়- রবি, বৃহস্পতিবার সকাল 9 টা থেকে বিকাল 5 টা পর্যন্ত এই সময়টুকুতে আপনি যোগাযোগ করতে পারবেন কেবল অন্য সময়টুকুতে আপনি তাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন তাই আপনি তাদের সাথে যোগাযোগ করতে হলে নির্দিষ্ট সময়ে নির্দিষ্ট দিনে আপনি তাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন

👉স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড করার কোন নিয়ম অনলাইনে নেই তাই আপনি স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড পিসি গুগলের সার্চ করবেন না ইস্মার্ট কার্ড নেওয়ার সময় উপরে ঠিকানায় যোগাযোগ করুন আর না হয় আপনি আপনার নির্বাচন নির্বাচন কমিশন অফিসে গিয়ে যোগাযোগ করুন তারাবি কিন্তু আপনাকে স্মার্ট কার্ড প্রদান করতে পারবে না অনলাইন থেকে আপনি কখনোই স্পিকার ডাউনলোড করতে পারবেন না ডাউনলোড করতে বাদল আপনাকে সরাসরি নির্বাচন কমিশন অফিসে যেতে হবে বিভিন্ন নাম্বার থেকে তাদের সাথে যোগাযোগ করুন

আমি নিজেই কিভাবে নিজের ভোটার আইডি কার্ড দেখবো

নিজেই নিজের ভোটার আইডি কার্ড দেখার জন্য আমরা উপরে লেখা দিয়ে রেখেছি যদি আপনি অপরূপ তোর লেখা ঠিকমত পড়েন তাহলে আমরা আশা করি আপনি আপনার ভোটার আইডি কার্ড নিজেই দেখতে পারবেন

nid card download bangladesh - online nid card - nid smart card online copy

আপনি আপনার নতুন আইডি কার্ডটি অনলাইন থেকে ডাউনলোড করতে পারবেন তবে এক্ষেত্রে আপনার স্লিপ নম্বর টি প্রয়োজন হবে তখন লাদে কোন প্রকার স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড করা সম্ভব না - আমরাও পারি step-by-step সাজিয়ে রেখেছি কিভাবে আপনার থেকে এনআইডি কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন তবে সরকার ডাউনলোড করতে গেলে আপনাকে অবশ্যই আপনার জেলা নির্বাচন কমিশনার অফিসে আবেদন করতে হবে

nid online copy download mobile - online nid bd - nid card bangladesh - nid check

বর্তমান সময়ে মোবাইলের কম্পিউটার তেমন পার্থক্য নেই আপনি আপনার এনআইডি কার্ড মোবাইল দিয়ে অনলাইন থেকে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন মোবাইল দিয়ে আপনি - মোবাইল দিয়ে আপনি আপনার এনআইডি কার্ড যাচাই করতে পারবেন

অনলাইন থেকে আপনার আইডি কার্ড সংগ্রহ করুন - স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড

অনলাইন থেকে আপনার ভোটার আইডি কার্ড সংগ্রহ করেন এই প্রশ্নের উত্তরে আমরা স্টেপ বাই স্টেপ লিখে রেখেছি দেবো আপনি অনলাইন থেকে ভোটার আইডি কার্ড সংগ্রহ করবে তবে স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড করতে পারো না

  • কিভাবে অনলাইন থেকে স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড করবেন দেখন - মোবাইল নাম্বার দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র
  • স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড 2019 - স্মার্ট কার্ড কিভাবে পাবো - স্মার্ট কার্ড চেক করার নিয়ম
  • নতুন ভোটার আইডি কার্ড করার নিয়ম  - জাতীয় পরিচয়পত্র যাচাই
হারানো ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড - স্মার্ট কার্ড চেক

স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড করেননি এমন একটি জানতে চেয়েছেন অনেকে বিভিন্ন মেসেজ করে জানতে চান কিন্তু স্মার্ট কার্ড অনলাইন থেকে ডাউনলোড করার কোন উপায় নেই আমরা অনেকেই গুগল সার্চ করে থাকি স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড হাউ টু ডাউনলোড স্মার্ট কার্ড কিন্তু আমাদের মাথায় রাখতে হবে স্মার্ট কার্ড কখন থেকে ডাউনলোড করা যায় না তবে কিভাবে পেতে পারেন তা নিয়ে অনলাইনে বিভিন্ন রয়েছে তবে আমি বলব আপনি আপনার নিকটস্থ নির্বাচন কমিশনার অফিসে যোগাযোগ করে আপনার স্মার্ট কার্ড পেতে পারেন এটি সবচেয়ে সহজ সমাধান

মোবাইল দিয়ে কি ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে পারব

অবশ্যই আপনার মোবাইল দিয়ে আপনার ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে পারবেন এবং অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারবেন তার জন্য আমাদের উপরে দেখানো হয়েছে আপনাকে ভালোবাসো না করতে হবে তাহলে আপনার মোবাইল অথবা কম্পিউটার যেকোনো একটি দিয়ে ইন্টারনেট সংযোগ করে আপনি চেক করতে পারবেন এবং ডাউনলোড করতে পারবেন

হারান আইডি কার্ড উত্তোলন করার জন্য কিভাবে অনলাইনে আবেদন করতে হবে

হারানো ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার জন্য ডাকে প্রথম একটি ফর্ম ডাউনলোড করতে হবে ডাউনলোড করার জন্য আপনি উপরে দেওয়া তাদের কন্টাক্ট লিংকগুলোতে যোগাযোগ করতে পারেন আমরা উপর দাদার নাম্বার ওয়েবসাইট লিংক দিয়ে রেখেছি আপনি তাদের সাথে যোগাযোগ কর আপনার আইডি কার্ড পুনরায় তোলার জন্য যে আবেদন ফরম পূরণ করতে হবে সেটা ডাউনলোড করে নিন
আমি জাতীয় পরিচয় পত্রের জন্য নিবন্ধন করেছি কিন্তু জাতীয় পরিচয়পত্র পায়নি এখন করনীয় কি

সে ক্ষেত্রে আপনাকে জাতীয় পরিচয় পত্র পাওয়ার জন্য আপনি যখন জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন করেছিলেন তখন নিবন্ধ শেষ হয় আপনাকে একটি স্লিপ নম্বর দেয়া হয়েছে ওয়েস্টিনে আপনি যদি আপনার নিকটস্থ নির্বাচন কমিশনার অফিস যান সেখান থেকে আপনি আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র সংগ্রহ করতে পারবেন অথবা অন্যদিকে সেই স্লিপ নম্বর দিয়ে আপনি আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারবেন কিভাবে ডাউনলোড করে তা বিস্তারিত আলোচনা করেছি এবং সব দেখিয়ে দিয়েছি আপনি সেখান থেকে দেখেন

ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড ভিডিও

👉আমাদের শেষ কথা:
আমরা আজকের পোষ্টে যথাসম্ভব চেষ্টা করছে সবগুলো প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য এবং কিভাবে একটি ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন থেকে চেক করবেন - কিভাবে অনলাইন থেকে ভোটার আইডি কার্ড সংগ্রহ করা যায় স্মার্ট কার্ড কিভাবে পাওয়া যায় যাবতীয় সব প্রশ্নের উত্তর আজকের পোস্টটি সাজিয়েছি যদি ভালো লাগে একটু শেয়ার করে দেন-👉 অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার উপায় - Nid online copy Download